ঘূর্ণিঝড় ফাই, জাপানে বিমানের ফ্লাইট বাতিল

September 9, 2019 10:40 am
Print Friendly, PDF & Email

জাপানে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ফাই। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে রাজধানী টোকিওর কাছে ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে এবং ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। ঝড়ের সময় বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টা ২১০ কিলোমিটার।

টোকিওর কয়েক হাজার মানুষকে নিরাপদে সরে যাওয়ার জন্য সতর্ক করেছে আবহাওয়া দফতর। ঘূর্ণিঝড়ের সময় বাতাসের গতিবেগ রেকর্ড অতিক্রম করতে পারে এবং ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে।

ঝড়ের কারণে যানবাহনের সেবা ব্যহত হয়েছে। প্রায় একশো বুলেট ট্রেন এবং শতাধিক বিমানের ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

টোকিওর বিদ্যুৎ কোম্পানি জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সৃষ্ট ভূমিধসের কারণে প্রায় দুই লাখ ৯০ হাজার বাড়ি বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় রয়েছে। টোকিওতে আঘাত হেনে এখন ২৫ কিলোমিটার উত্তরে অগ্রসর হচ্ছে ফাই। এটি জাপানের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে আঘাত হানতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কর্তৃপক্ষ সতর্ক করে বলেছে, ঘূর্ণিঝড়ের কারণে বিভিন্ন স্থানে ভূমিধসের ঘটনা ঘটতে পারে এবং ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে বিভিন্ন নদীর পানি বেড়ে যেতে পারে। এই মুহূর্তে রাগবি ওয়ার্ল্ড কাপের প্রস্তুতি নিচ্ছিল জাপান। এর মধ্যেই ঘূর্ণিঝড়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে টোকিও।

এদিকে, কোরীয় উপদ্বীপে সবচেয়ে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় লিংগ্লিংয়ের আঘাতে উত্তর কোরিয়ায় পাঁচজন ও দক্ষিণ কোরিয়ায় তিনজন নিহত হয়েছে। এ ছাড়া আহত হয়েছেন ১৬ জন।

শনিবার স্থানীয় সময় দুপুর ২টার দিকে শুরু হয়ে রোববার মধ্যরাত পর্যন্ত উত্তর কোরিয়ায় তাণ্ডব চালিয়েছে লিংগ্লিং। ঘূর্ণিঝড় কবলিত অঞ্চলগুলোতে উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে উত্তর কোরিয়ায় খাদ্য সংকট আরও তীব্র হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। চলতি বছরের শুরুতেই জাতিসংঘ সতর্ক করে জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়ার প্রায় এক কোটি মানুষের জরুরি ভিত্তিতে খাবার প্রয়োজন।