বার্সেলোনার বিপক্ষে উদযাপন করবেন না সুয়ারেজ

October 9, 2020 3:01 pm
Print Friendly, PDF & Email

এশিয়ানমেইল ডেস্ক:

চলতি মৌসুমের শুরুতে বার্সেলোনা ছেড়ে স্পেনের আরেক ক্লাব অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে নাম লিখিয়েছেন উরুগুইয়ান তারকা ফরোয়ার্ড লুইস সুয়ারেজ। নামমাত্র ৬ মিলিয়ন ইউরো ট্রান্সফার ফি’তে দলবদল করেছেন তিনি। বলা ভালো, দল ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে তাকে।

নতুন কোচ রোনাল্ড কোম্যান দায়িত্ব নিয়ে শুরুতেই মিডিয়ায় জানিয়ে দিয়েছিলেন, তার পরিকল্পনায় নেই সুয়ারেজের নাম। কিন্তু এ কথাটি তিনি সুয়ারেজকেই বলেননি। এছাড়া তাকে বিক্রি করে দেয়ার যে পরিকল্পনা চলছে, এটিও ক্লাব ম্যানেজম্যান্টের বদলে মিডিয়ার মাধ্যমেই জানতে পেরেছেন সুয়ারেজ।


তাই ক্লাব থেকে বিদায়ের সময় আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেও, ভেতরে একটা চাপা ক্ষোভ ও অভিমান ঠিকই ছিল সুয়ারেজের। যা হয়তো মিটবে না আর কোনোদিন। তবু বার্সেলোনার হয়ে খেলা ছয় বছরের সুখস্মৃতিটাই বেশি মনে রাখতে চাইছেন সুয়ারেজ এবং ক্লাবের প্রতি নিজের ভালোবাসাও অটুট থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

যে কারণে এখন নতুন দল অর্থাৎ অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের হয়ে খেলতে নেমে বার্সেলোনার বিপক্ষে গোল করলেও কোনো উদযাপন করবেন না সুয়ারেজ। তবে বার্সার টিম ম্যানেজম্যান্ট তথা বোর্ড প্রেসিডেন্ট ও অন্যান্য কর্মকর্তাদের দিকে আঙুল তুলবেন বলে ঠিক করেছেন এ উরুগুইয়ান তারকা।

খেলাধুলার জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম ইএসপিএনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সুয়ারেজ বলেছেন, ‘আমি যদি বার্সেলোনার বিপক্ষে গোল করি, তাহলে আমি চিল্লাবো না উন্মত্ত হয়ে যাবো না। তবে নিশ্চিতভাবেই কোথাও না কোথাও ঠিকই ইঙ্গিত করব আমি।’

অ্যাটলেটিকোর জার্সি গায়ে বার্সেলোনার বিপক্ষে গোল করার প্রথম সুযোগ পেতে ২২ নভেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে সুয়ারেজকে। সেদিন লা লিগার ম্যাচে বার্সেলোনাকে নিজেদের ঘরের মাঠে স্বাগত জানাবে অ্যাটলেটিকো এবং সুয়ারেজ পাবেন সাবেক সতীর্থদের বিপক্ষে খেলার স্বাদ।

ইএসপিএনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ক্লাবের ওপর থাকা নিজের ক্ষোভের কথাও বলেছেন সুয়ারেজ। তার ভাষ্য, ‘তাদের ব্যবহার এবং কাজের ধারাটা ঠিক ছিল না। এটাই আমাকে ও আমার পরিবারকে দুঃখ দিয়েছে। তারা আমাকে যখন জানালো যে, আমি তাদের পরিকল্পনায় নেই, সেটা শুধুমাত্র একটা কনফার্মেশন ছিল। কেননা এসব আমি আগেই মিডিয়ায় দেখেছি।’

‘কোচের ফোনকলের আগে ক্লাবের পক্ষ থেকে কেউ আমাকে কিছুই বলেনি। কোম্যান আমাকে ফোন করে বলে যে, আমি তার পরিকল্পনায় নেই। অথচ এই তথ্য আমি আরও দশ দিন আগে থেকেই জানতাম।’

সুয়ারেজ আরও যোগ করেন, ‘আমি বার্সেলোনায় ছয় বছর থেকেছি এবং সবসময়ই বলতাম যে ক্লাবে একজন তরুণ ফরোয়ার্ড প্রয়োজন। কিন্তু তারা কখনও এমন কাউকে আনতে পারেনি যে আমার সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে পারে। অন্তত মিডিয়ায় জানার আগে আমাকে জানাতে পারতো তাদের (ক্লাব) কথাগুলো।’